logo

রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১২ আশ্বিন, ১৪২৭

header-ad

কল্পকথা : যাবি তুই?

সৈয়দ এরশাদুল হক মিলন | আপডেট: ১৫ জুলাই ২০১৪

হাঁসফাঁস। কী লিখি ছাইপাশ! না জীবন, না যৌবন। কখনো বলিনি কবি। গড়িনি নিজের ছবি। লিখি ছাইপাশ। নীল আকাশ। তাও নেই। আমি তো সে-ই।

একতাল কাগজ। দেড় কেজি মগজ। বেহুদা, ফেলনা। স্বচ্ছ এক আয়না। সেখানে নিজের মুখ। দুরুদুরু করে বুক। সেইখানে ঘর এক। ডেকে বলি, ‘চেয়ে দেখ। অইখানে থাকিস তুই। ভালোবেসে আমি ছুঁই। তোকে। এই বুকে। যতনে। কারণে। আর অকারণে। ভালোবেসে। পাশে। আজীবন। যখন-তখন। বাসবো ভালো। আঁধার কালো। রাত্রি এলে। ঘুম পেলে। মদের নেশায়। জীবনের পেশায়। নিরন্তর। বরাবর। চল। যাই। চলে যাই। ভুবন। সংসার। ঘরবাড়ি। টাকাকড়ি। বাবা-মা। গায়ের জামা। খুলে রেখে। উদোম গায়ে। এক আকাশ পথ। বড্ড নিরাপদ। চল। চলে যাই।

কী বলিস তুই? ডাকবো না? যাবি না? কেন? যেনতেন। ঘর সংসার। অভ্যাসের হাড়। মিথ্যে ছলনা। নষ্টামির ভাবনা। ছেড়েছুড়ে চল। চলে যাই। যেখানে অভ্যাস নাই।

যাবি তুই? আমার সাথে। হাত দুটো আমার হাতে। মন দুটি অই আকাশে। উড়ছে দেখ মুক্ত বাতাসে। সেইসব ভালোলাগা। প্রেমে পড়া। হুটোপুটি। ছুটোছুটি। হাততালি। গলাগলি। গোল্লাছুট। দে ছুট। আসছে অই নষ্ট যত। ধরতে গেলে মরবি তত। চল। চলে যাই। যাবি তুই?