logo

মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৮ | ১০ বৈশাখ, ১৪২৫

header-ad

সেই এসেছে আজ, খবর হয়ে

সেজুল হোসেন | আপডেট: ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭

বিস্কুট লজেন্স পান সিগারেটসহ গৃহপণ্যের টং দোকান। নীচে জুতা রেখে দোকানে উঠতে হতো। বসার জন্য দোকানে বড় পাটাতন। ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৮। হাইস্কুলের দিনগুলোতে স্কুল ছুটির পরে কিংবা ক্লাস শুরুর আগে এই দোকানে বসতাম। মজাদার লাড্ডু খেতাম। লোভনীয় ছিল। এই লাড্ডু খাওয়া স্বপ্নেও দেখতাম মাঝে মাঝে। বাকিতে খেতাম। কখনো কখনো নগদ টাকা ধার নিতাম ৫০-১০০।

দোকানে যার সঙ্গে বসতাম, আড্ডা দিতাম সে ছিলো সহপাঠি। তার বাবার দোকানে সে সময় দিতো। আমাদের প্রেমটা বেশি ছিলো। একই এলাকার বলে লতায় পাতায় আত্মীয়ও ছিলো। মনের মিল আন্তরিকতা কোনও কিছুরই অভাব ছিলো না। আমরা তখন কিছু করলে একসঙ্গে করতাম। পিকনিকে যাওয়া, খেলা দেখতে যাওয়া বা যে কোনও রকমের আনন্দদায়ক কাজে আমাদের ভাগাভাগি ছিলো। ফেসবুক টুইটার ছিলো না দেশে। ফোনও ছিলো না। দেখা হতো ঘোষণা ছাড়াই। হঠাৎ সে অন্য কাউকে পান বানিয়ে দিতে দিতে দেখতো দোকানের সামনে দাঁড়ানো আমি। মৃদু হাসতো। বলতে হতো না ‘উঠে বস’। বসতাম। লাড্ডু খেতাম। কি মজাদার দুশ্চিন্তামুক্ত, পেইন ফ্রি জীবন ছিলো আমাদের। স্কুলে শপথ নিতাম একসঙ্গে। সামনে হাত বাড়িয়ে বলতাম 'দেশের কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত রাখিব'।

যেহেতু উপজেলা সদরে ঘুরাফেরা করি জামা কাপড় পড়া কিংবা স্টাইলের ক্ষেত্রে আমাদের আদর্শ ছিলো জেলা সদরের মানুষ। জেলা থেকে কেউ আসলে তার জুতা প্যান্ট জামা খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখতাম আর সেগুলো নকল করতাম নিজেদের জীবনে। সেসময় আরো যা যা করে আনন্দ পেতাম, সাধ্যের মধ্যে থাকা সবই করতাম আমরা।

তারপর যা হয় যে যার মতো ছিটকে পড়ি। সে হয়তো আরো কিছুদিন দোকানদারী করে, বিদেশে চলে যায়। সৌদি আরব বা অন্য কোথাও। মাঝখানে দেশে এসে বিয়ে করে। সংসার হয়। দুইটা বাচ্চাও আছে তার শুনেছি। নতুন কোনো ব্যবসার চেষ্টা করে। বয়স বাড়ে। যোগাযোগ একেবারেই নাই। ১৬ বছর দেখা নাই, কথা নাই। আগে মনে পড়তো। গত কয়েক বছর আরো অনেককে ভুলে যাবার মতো তাকেও ভুলে গিয়েছিলাম। দুয়েকদিন আগে ফেসবুকে তার ছবি দেখে মনে পড়লো।

ভাবলাম এবার বাড়ি গেলে খোঁজ নেবো, উপজেলা সদরে যাবো। তাকে ফোন করে দেখা করবো। না তার কাছে যেতে হয়নি, সেই এসেছে আজ। টাইমলাইনে, খবর হয়ে। এই শীতে বাড়ির কাছে একটি মোটর সাইকেল দুর্ঘটনা তার দুই সন্তানের মুখ থেকে 'বাবা' ডাক কেড়ে নিয়েছে!!! (ফেসবুক থেকে নেয়া।)

ফেমাসনিউজ২৪/আরএ/আরইউ