logo

শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯ | ৬ বৈশাখ, ১৪২৬

header-ad

ইসলামবিদ্বেষী বই লিখতে গিয়ে যা হলো রাজনীতিবিদের!

ধর্ম ডেস্ক | আপডেট: ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নেদারল্যান্ডসের সাবেক সংসদ সদস্য ও উগ্র ডানপন্থি রাজনীতিবিদ জোরাম ভ্যান ক্ল্যাভারেন। ইসলাম ধর্মের কট্টর সমালোচক ছিলেন তিনি। তবে তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।

এক সময় এই ক্ল্যাভারেনই ইসলামকে শতাব্দীর সবচেয়ে বড় ‘দুর্যোগ’ আখ্যা দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, একশ বছরের নেদারল্যান্ডসে আঘাত হানা সবচেয়ে বড় দুর্যোগের নাম হলো ‘ইসলাম’।

এই বিদ্বেষী মনোভাব থেকেই ক্ল্যাভারেন ইসলামের সমালোচনা করে একটি বই লিখতে শুরু করেন। কিন্তু এটি তার জীবনে যুগান্তকারী পরিবর্তন এনে দেয়। ইসলাম সম্পর্কে নিজের মনোভাব তো বদলেছেনই, একই সঙ্গে নিজের পূর্বপুরুষের ধর্ম ছেড়ে ইসলাম গ্রহণ করেছেন তিনি।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য টেলিগ্রাফের খবরে বলা হয়, জোরাম ক্ল্যাভারেন ছিলেন নেদারল্যান্ডসের কট্টর ইসলামবিদ্বেষী রাজনীতিক গ্রিট উইল্ডার্সের ডান হাত। সব সময় তিনি ইসলামের দোষ-ত্রুটি খুঁজে বেড়াতেন।

বিভিন্ন প্রেক্ষাপটে অযাচিতভাবে ইসলামকে দোষ দিতেন। এর ধারাবাহিকতায় তিনি ইসলামের সমালোচনা করে একটি গবেষণাধর্মী বই লেখার উদ্যোগ নেন। কিন্তু এ গবেষণা ইসলাম সম্পর্কে তার ধারণা পুরোপুরি বদলে দেয়।

ইসলাম গ্রহণের পর ৪০ বছর বয়সী জোরাম ভ্যান ক্ল্যাভারেন বলেন, ‘তিনি তার মন পরিবর্তন করেছেন এবং ইসলামবিরোধী একটি বই লিখতে গিয়ে নিজেকে বদলে নিয়েছেন।’ গত মঙ্গলবার তিনি নেদারল্যান্ডসের একটি রেডিও চ্যানেলকে এসব কথা বলেন।

ক্ল্যাভারেন বলেন, বহু কিছুর ভেতর দিয়ে তিনি ইসলামের ছায়াতলে এসেছেন। আমি ইসলামবিরোধী বই লিখতে গিয়ে বহু জিনিসের পাল্টা যুক্তি-তর্ক তুলে ধরেছি। এগুলো আমার দৃষ্টিভঙ্গিকে নাড়া দিয়েছে। ভ্যান ক্ল্যাভারেন ছোটবেলা থেকেই অর্থডক্স প্রোটেস্ট্যান্ট খ্রিস্টান পরিবেশে বেড়ে ওঠেন।

তিনি বলেন, বহুদিন ধরেই আমি এমন কিছু খুঁজছিলাম। ইসলাম গ্রহণের পর মনে হচ্ছে আমি আমার পথের ঠিকানা পেয়েছি। নেদারল্যান্ডস সংসদের নিম্নকক্ষে দীর্ঘদিন ধরে ভ্যান ক্ল্যাভারেন বিরামহীনভাবে ইসলামের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়েছেন। ২০১০ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি নেদারল্যান্ডসের সংসদ সদস্য ছিলেন।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি