logo

রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭ | ৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪

header-ad

শেষ ওয়ানডেতেও হোয়াইটওয়াশ বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক | আপডেট: ২২ অক্টোবর ২০১৭

লক্ষ্য ৩৭০ রান। জিততে হলে অসম্ভবকে সম্ভব করতে হবে। তবে অতটা কষ্ট হয়তো করতে চান না বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। দক্ষিণ আফ্রিকার দেওয়া ৩৬৯ রানের জবাবে ১৬৯ রানেই অলআউট হয় সফরকারীরা। ২০০ রানে ম্যাচটা হেরে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা পেল বাংলাদেশ। এর আগে টেস্ট সিরিজেও ২-০ ব্যবধানে হেরেছিল লাল-সবুজের দল। 

ইস্ট লন্ডনে প্রথমে ব্যাটিং করে ৩৬৯ রানের বিশাল লক্ষ্য দাঁড় করায় দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে সাকিব আল হাসানের হাফ সেঞ্চুরি সত্বেও ১৬৯ রানর বেশি করতে পারেনি মাশরাফির দল।

প্রথম ওয়ানডেতে ২৮২, দ্বিতীয়টিতে ৩৫৩ আর আজ তৃতীয় ম্যাচে ৩৬৯ এবার বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজে ১০০৪ রান করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। তিন ম্যাচ সিরিজে এই প্রথম বাংলাদেশ হজম করল ১ হাজারের বেশি রান! ওয়ানডে ইতিহাসেই ৩ ম্যাচ সিরিজে ১ হাজার রান হজম করা খুব বিরল ঘটনা। এর আগে মাত্র দুটি সিরিজে ঘটেছিল এমন ঘটনা।

এর আগে তা হজম করেছে তিন দল ভারত, ইংল্যান্ড ও জিম্বাবুয়ে। ভারত-ইংল্যান্ডের ১ হাজার রান হজমের ঘটনা অবশ্য বেশি দিন আগের নয়। গত জানুয়ারিতে জমজমাট এক সিরিজই উপহার দিয়েছিল এই দুই দল। প্রতি ম্যাচেই তারা ৩০০ পেরোনো স্কোর গড়েছে। এর মধ্যে দুটি ম্যাচে তো দুই দলই পেরিয়েছে ৩৫০ রান! তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এই সিরিজে ইংল্যান্ড হজম করেছে ১০৫৩ রান। বিপরীতে ভারতীয় বোলারদের গুনতে হয়েছে ১০৩৭ রান। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে ইংলিশরা সিরিজটা হারে ২-১ ব্যবধানে। 

তিন ম্যাচ সিরিজে দুটি দলকে রানের বোঝায় পিষ্ট করেছে একমাত্র দক্ষিণ আফ্রিকা। ২০১০ সালের অক্টোবরে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে জিম্বাবুয়েকে হজম করতে হয়েছিল ১০২৩ রান। সে তুলনায় বাংলাদেশ কিছুটা ‘ভালো’ অবস্থানে—১০০৪!

এর আগে বাংলাদেশ তিন ম্যাচ সিরিজে কখনো ৯০০ রানও হজম করেনি। সর্বোচ্চ ৮৬৩ রান হজম করেছিল। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেই সিরিজটাও হয়েছিল সেই ২০১১ সালে। 
বাংলাদেশের ওয়ানডে ক্রিকেটের অগ্রযাত্রায় একটা সতর্ক সংকেত হয়ে এল এই সিরিজ।

আজ খেলার সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ২০০ রানে জয়ী দক্ষিণ আফ্রিকা।

দক্ষিণ আফ্রিকা ইনিংস: ৩৬৯/৬ (৫০ ওভার)

(টেম্বা বাভুমা ৪৮, কুইন্টন ডি কক ৭৩, ফাফ ডু প্লেসিস ৯১, এইডেন মার্করাম ৬৬, এবি ডি ভিলিয়ার্স ২০, ফারহান বিহারডাইন ৩৩*, উইয়ান মাল্ডার ২, আন্দিল ফেহলাকওয়েও ৫, কাগিসো রাবাদা ২৩*; মাশরাফি বিন মর্তুজা ০/৬৯, মেহেদী হাসান মিরাজ ২/৫৯, রুবেল হোসেন ১/৭৫, সাকিব আল হাসান ০/৫৬, তাসকিন আহমেদ ২/৬৬, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ০/৩৩, সাব্বির রহমান ০/৮)।

বাংলাদেশ ইনিংস: ১৬৯ (৪০.৪ ওভার)

(ইমরুল কায়েস ১, সৌম্য সরকার ৮, লিটন দাস ৬, মুশফিকুর রহিম ৮, সাকিব আল হাসান ৬৩, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২, সাব্বির রহমান ৩৯, মেহেদী হাসান মিরাজ ১৫, মাশরাফি বিন মুর্তজা ১৭, তাসকিন আহমেদ ২, রুবেল হোসেন ০*; কাগিসো রাবাদা ১/৩৩, ডেন প্যাটারসন ৩/৪৪, উইয়ান মাল্ডার ১/৩২, আন্দিল ফেহলাকওয়েও ১/১৩, ইমরান তাহির ২/২৭, এইডেন মার্করাম ২/১৮)।

ফেমাসনিউজ২৪/এমএইচ/আরকে