logo

শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

লড়াই করে হারলো বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক | আপডেট: ১৯ মার্চ ২০১৮

চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে লড়াই করে হারলো বাংলাদেশ। ১৬৭ রানের তাড়া করতে নেমে ভারত ২০ ওভারে ১৬৮ রান করে।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে সাব্বির রহমানের হাফ সেঞ্চুরি ওপর ভিত্তি করে ১৬৬ রানের পুঁজি সংগ্রহ করে বাংলাদেশ দল। ৫০ বল খেলে ৭৭ রান করেন সাব্বির রহমান। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে এটি তার চতুর্থ হাফ সেঞ্চুরি। ইনিংসের শেষ ওভারে ১৮ রান নেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ভারতীয় বোলারদের মধ্যে যুজবেন্দ্র চাহাল চার ওভার বল করে ১৬ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেন।

রোববার নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ২৭ রানে প্রথম উইকেট হারিয়েছে টাইগাররা। ইনিংসের চুতর্থ ওভারে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে সুরেশ রায়নার হাতে ক্যাচ হন লিটন দাস। ৯ বল খেলে ১১ রান করেন তিনি।

ইনিংসের পঞ্চম ওভারে দুইটি উইকেট হারায় বাংলাদেশ। যুজবেন্দ্র চাহালের করা এই ওভারের দ্বিতীয় বলে শারদুল ঠাকুরের হাতে ক্যাচ হন তামিম ইকবাল। ১৩ বল খেলে ১৫ রান করেন তিনি। ওভারের ষষ্ঠ বলে শিখর ধাওয়ানের হাতে ক্যাচ হন সৌম্য সরকার। দুই বল খেলে এক রান করেন তিনি।

দলীয় ৬৮ রানে যুজবেন্দ্র চাহালের বলে বিজয় শঙ্করের হাতে ক্যাচ হন মুশফিকুর রহিম। ১২ বল খেলে ৯ রান করেন তিনি। দলীয় ১০৪ রানে রান আউট হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ১৬ বল খেলে ২১ রান করেন তিনি। দলীয় ১৩৩ রানে রান আউট হন সাকিব আল হাসান। সাত বল খেলে সাত রান করেন তিনি।

জয়দেব উনাদকাতের করা ইনিংসের ১৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলে বোল্ড হন সাব্বির রহমান। ৫০ বল খেলে ৭৭ রান করেন তিনি। ওভারের তৃতীয় বলে বোল্ড হন রুবেল হোসেন। এক বল খেলে শূন্য রান করেন তিনি।

এর আগে বাংলাদেশ ২০১৬ সালে ভারতের বিপক্ষে এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টির ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল। সেবার ৮ উইকেটে হেরে গিয়েছিল মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বাধীন দলটি। চলতি ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টেও ভারতের বিপক্ষে জয় পায়নি বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে ভারতের সঙ্গে ৬ উইকেটে ও দ্বিতীয় দেখায় ১৭ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ।


২০১৫ সালের দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজের পর আর ভারতের বিপক্ষে জয় পায়নি বাংলাদেশ। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের গেম ডেভেলপমেন্ট কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিমের মতে, ভারতের বিপক্ষে জয়ের জন্য নির্দিষ্ট কিছু ব্যাপার মাথায় রেখে এগুতে হবে।


তার মতে, ভারতের মূল শক্তি তাদের টপ অর্ডার। শেখর ধাওয়ান ও রোহিত শর্মা এই দলটির নিউক্লিয়াস। এ দুজনকে দ্রুত ফেরাতে হবে। তিনি বলেন, ভারতের প্রধান ব্যাটসম্যান ও বোলারদের কথা মাথায় রেখে খেলতে হবে।

২০০৯ সালে ঢাকায় বাংলাদেশ, জিম্বাবুয়ে এবং শ্রীলংকার মধ্যে ত্রিদেশিয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলংকার কাছে ২ উইকেটে হেরে যায় বাংলাদেশ।

২০১২ সালে এশিয়া কাপ ফাইনালে পাকিস্তানের সঙ্গে ২ রানে হারে বাংলাদেশ। ২০১৬ সালের এশিয়া কাপ ফাইনালে ভারতও ৮ উইকেটে পরাজিত করে বাংলাদেশকে।

বাংলাদেশ দল: সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, নাজমুল ইসলাম অপু, মেহেদী হাসান মিরাজ।
ফেমাসনিউজ২৪/এসআর/পিআর