logo

সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ | ৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

জয়ে ফ্রান্সের অর্থনীতি চাঙ্গা

ক্রীড়া ডেস্ক | আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৮

১৯৯৮ বিশ্বকাপ ফ্রান্সকে খুব ভালোভাবে বুঝিয়েছিল একটি ফুটবল আসর কীভাবে দেশের অর্থনীতির রূপরেখা বদলে দিতে জানে। শেষবার ২০১৬ ইউরোর আয়োজক হয়েও তা নতুন করে বুঝেছে। এবার খেলাটা দেশে হচ্ছে না বটে কিন্তু ফ্রান্স ফুটবল দল উঠে গেছে ফাইনালে। আর তাদের ফাইনালে উঠে যেতে দেখার পর ফরাসি অর্থমন্ত্রী ব্রুনো লে মাইরে বলেছেন, এটা দেশের অর্থনীতির উন্নতির জন্য দারুণ।

গত মঙ্গলবার সেমিফাইনালে জিতে ১৯৯৮ বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স ১৫ তারিখের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। ২০০৬ বিশ্বকাপের পর আবার ফাইনালে উঠেছে তারা। সুযোগ দ্বিতীয় বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ের। ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়ার মধ্যে যে কোনো এক দলের সঙ্গে ফাইনালে শিরোপার লড়াই হবে তাদের। আর ফ্রান্স দল এবারের আসরে উল্লেখযোগ্য দলকে দিয়েছে বিদায়, খেলছেও চ্যাম্পিয়নের মতো। তারা ভরা দল। সাড়া জাগিয়েছে খুব।

রাশিয়ায় ফ্রেঞ্চ দলের এমন ধারাবাহিক পারফরম্যান্সে মুগ্ধ ফরাসি অর্থমন্ত্রী ব্রুনো জানিয়েছেন, এতে করে সাধারণভাবেই দেশের অর্থনীতি আরও চাঙ্গা হয়ে থাকে। সেটাই উচিত। ফ্রান্স টু টেলিভিশনকে গতকাল বুধবার অর্থমন্ত্রী বলেছেন, ‘এটা (অর্থনীতি) চাঙ্গা হওয়ার জন্য ভালো।’ কিন্তু এর বেশি কিছু বলতে বা ব্যাখ্যা দিতে তিনি রাজি হননি।

ফ্রেঞ্চ ইকোনমি এখন ইউরো জোনে দ্বিতীয় বৃহত্তম। গত বছরের মে মাসে নির্বাচনে নতুন প্রেসিডেন্ট আসার পর সেই অর্থনীতিতে কিছুটা ধাক্কা লাগার ইঙ্গিত মিলেছিল। বিশ্বকাপ মূলত কনজিউমার খরচ খরচায় অর্থনীতির ওপর প্রভাব ফেলে। ইংল্যান্ডে ক্রেতারা জার্সি, বিয়ার, বারবিকিউতে আরও বেশি মন দেয়। বড় টেলিভিশনের বিক্রি বাড়ে। আরও কিছু আছে। কিন্তু ব্রিটিশ রিটেইল কনসোর্টিয়াম জানিয়েছে, সার্বিক বৃদ্ধি বিচারে তা শ্লথ।

ফেমাসনিউজ২৪/আরআর/আরইউ