logo

বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

এক ম্যাচেই ৩৭ ছক্কা!

স্পোর্টস ডেস্ক | আপডেট: ১৫ অক্টোবর ২০১৮

২০১৩ সালের ২ নভেম্বরে ঘটনা এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ছক্কা মারার রেকর্ড গড়েছিল ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া। তাও সেটি ছিল ওয়ানডে ম্যাচ। সব মিলিয়ে ওই এক ম্যাচে ভারত এবং অস্ট্রেলিয়ার ব্যাচসম্যানরা মিলে ৩৮টি ছক্কার মার মেরেছিল । ক্রিকেটের যে কোনো ফরম্যাটে (টেস্ট, ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টি) ওটা ছিল সর্বোচ্চ ছক্কার মার।

এবার ভারত-অস্ট্রেলিয়ার সেই ছক্কার রেকর্ড গড়া ম্যাচটিকেও পেছনে ফেলেছে আফগান প্রিমিয়ার লিগের টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। ৩৭ ছক্কা মেরেছেন ক্রিস গেইলরা।ঘটনাটি ঘটেছে আফগান প্রিমিয়ার লিগে রোববার রাতের ম্যাচে।

আফগান প্রিমিয়ার লিগের গ্রুপ পর্বে রোববার রাতে মুখোমুখি হয়েছিল ক্রিস গেইলের দল বলখ লিজেন্ডস এবং কাবুল জাওনান। এই ম্যাচেই দু’দলের ব্যাটসম্যানরা ছক্কা বৃষ্টি ঝরিয়েছিল। পুরো ম্যাচে রান উঠেছে ৪৬৭টি।

শারজাহ স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ক্রিস গেইলের ১০ ছক্কা ২ চারে মাত্র ৪৮ বলে ৮০। এছাড়া দারইস রাসলির ৫০, লংকান মানোয়ারোর ৪৬ ও অধিনায়ক মোহম্মদ নবীর ৩৭ রানে নির্ধারিত ২০ ওভারে বালখ লেজেন্ড ৬ উইকেট হারিয়ে করে ২৪৪ রান। বলখ লিজেন্ডসের ব্যাটসম্যানরা মোট ২৩টি ছক্কার মার মারেন। গেইলের ১০টি ছাড়াও দরবিশ রাসুলি ৫টি, দিলশান মুনাবিরা ৩টি এবং মোহাম্মদ নবি মারেন ৬টি ছক্কা। মিরওয়াইজ আশরাফ মারেন ২টি।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে হয়রতউল্লাহ জাজাই এর রেকর্ড ফিফটি, একওভারে টানা ৬টি ছক্কার মার মারেন। ১২ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করার মাত্র ১৭ বলে ৬২, লুক রনকির ৪৭, শাহিদুল্লাহ ৪০, ইনগ্রামের ২৯ ও রশিদ খানের ১৯ রানের সুবাদেও ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ২২৩ রান করতে পারে কাবুল জাওয়ান। এছাড়া কাবুল জাওনানের ব্যাটসম্যান শহিদুল্লাহ, কলিন ইনগ্রাম এবং রশিদ খান ছক্কা মারেন ২টি করে মোট ৬টি। লুক রনকি মারেন ১টি। মোট ১৪টি ছক্কার মার আসে কাবুলের ব্যাটসম্যানদের ব্যাট থেকে।

ম্যাচে অবশ্য শেষ পর্যন্ত ক্রিস গেইলের দল বল লিজেন্ডস জিতেছে ২১ রানে। তাদের করা ২৪৪ রানের জবাবে কাবুল জাওনান থেমে যায় ২২৩ রানে।
ফেমাসনিউজ২৪/কেআর/এস