logo

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৩ পৌষ, ১৪২৫

header-ad

চুট্টা আম্পায়ার ও নাগিন নাচ

শামীমুল হক | আপডেট: ১৭ মার্চ ২০১৮

গণ্ডগোলটা লাগায় চুট্টা আম্পায়ার। আর এতেই ঘটে বিপত্তি। ক্ষোভে ফুঁসে ওঠে শ্রীলঙ্কা থেকে বাংলাদেশের লক্ষ কোটি মানুষ। পরপর দুটি বল মোস্তাফিজের মাথার ওপর দিয়ে গেলেও চুট্টা আম্পায়ার নো বল দেয়নি। এ নিয়েই শুরু উত্তেজনা। আম্পায়ারের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা। মাঠ ছেড়ে দিয়ে উঠে আসতে অধিনায়ক সাকিবের নির্দেশ। গোটা বাংলাদেশ চেয়ে আছে শ্রীলঙ্কার সেই মাঠের দিকে।

উত্তেজনা পারদ উধ্বমুখী, নানা ক্লাইমেক্স, এন্টিক্লাইমেক্স শেষে নাগিন নাচ দিয়ে শেষ। এ ছিল শুক্রবার রাতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার খেলার মূল সারমর্ম। কিন্তু বাংলাদেশ খেলোয়াড়দের নাগিন নাচ বাংলাদেশের ঘরে ঘরে আলোড়ন তুলেছে। ফেসবুক, টুইটার সর্বত্র এ নাগিন নাচের ধামাকা।

নিদহাস ট্রফি তাই বিশ্বজুড়ে আলোচিত হয়ে থাকবে নাগিন নাচের জন্য। শুক্রবার রাত থেকেই ফেসবুক খুললেই চোখে পড়ছে অনেকের ওয়ালে তার নিজের নাগিন নাচের ছবি। কেউবা ভিডিও করে তা ফেসবুক ওয়ালে দিয়েছে। ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে এখন নাগিন নাচ জনপ্রিয় এক নাচ হয়ে উঠেছে। পাশাপাশি এ নাচ চুট্টা আম্পায়ারকে দেখানো এখন তীব্র প্রতিবাদও মনে করা হতে পারে।

নাগিন নাচতে নাচতে যেন ছোবল মারছে আম্পায়ারকে। বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা জিতে সত্যিকার অর্থেই ছোবল বসিয়েছে আম্পায়ারের মুখে। খেলা শেষে তাই নাগিন নাচে যোগ দেন অধিনায়ক সাকিব। নিজের ড্রেস খুলে মাঠে প্রবেশ করলেও পরক্ষণেই তা ফের শরীরে পড়ে নেন।

কিন্তু এ অপরাধে তাকে করা হয়েছে জরিমানা। এ জরিমানাতেও দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা গর্ববোধ করছেন। তারা বলছেন, বাংলাদেশ প্রতিবাদ করতে শিখেছে। ন্যায্য পাওনা আদায়ে প্রতিবাদ বিশ্ব দেখেছে। চুট্টা আম্পায়ারও বুঝতে পেরেছে বাংলাদেশ আর আগের বাংলাদেক নেই।

তাদের এখন ভেবেচিন্তে কথা বলতে হবে। সিদ্ধান্ত দিতেও চিন্তা করতে হবে। তবে চুট্টা আম্পায়ারের জেনে শুনে ভুলের মাশুল গুনতে হয়েছে প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে উপস্থিত বাংলাদেশ সমর্থকদের। একবল বাকি থাকতেই মাহমুদুল্লাহ যখন ছক্কা মেরে দলকে জয় এনে দেয় শ্রীলঙ্কান সমর্থকরা বেদিশা হয়ে পড়েন।

তারা হামলে পড়েন বাংলাদেশ সমর্থকদের উপর। এ সময় শ্রীলঙ্কান পুলিশ নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে। মার খেয়েও বাংলাদেশের সমর্থকরা বলেছেন, তাতে দুঃখ নেই। বাংলাদেশ জিতেছে এতে মহাখুশি। শুক্রবারের এ খেলার রেশ মাঠের উল্লাসেও পড়ে। দুদেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে উত্তেজনাও চলে কিছুক্ষণ।

ম্যাচ শেষে সাকিবকে জরিমানা করা হলো, কিন্তু যে আম্পায়ারের জন্য এতকিছু তারতো কিছু হলো না। সময় এসেছে ক্রিকেট মোড়লদের এ নিয়ে ভাববার। আম্পায়ার ভুল করলে তারও শাস্তি নগদ নগদ পেতে হবে। এটা হলেই আম্পায়াররা নিজেরমতো করে সিদ্ধান্ত দেবেন না।

ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত দেবে। আর জনপ্রিয় ক্রিকেট খেলা চুট্টা আম্পায়ারের রোষানল থেকে রক্ষা পাবে। তাই বলি, সবাই নাগিন নাচে শামিল হোন অসুবিধা নেই। দাবিও তুলেন চুট্টা আম্পায়ার থেকে ক্রিকেট বাঁচানোর।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম